সিরিজ জিতলো ভারত – পারলেন না স্যাম কারান

0
1

স্পোর্টস ডেস্কঃ  সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে হতাশায় ডুবতে বসা দলকে ৭ নম্বরে নেমে আশার আলো দেখাচ্ছিলেন স্যাম কারান। তবে শেষটা আর নিজের মতো করে সাজাতে পারলেন না। জয়ের থেকে মাত্র ৭ রান দূরেই থামতে হলো অলরাউন্ডার কারানকে। শতকের এত নিকটে এসেও ফিরে যাওয়ার থেকে বেশি কষ্ট মনে হয় সিরিজ হারারটাই লাগছে কারানের।
ফিফটি করে মালানের ফেরার পরে যখন কারান ব্যাট হাতে নামে তখন ভারত হয়তো প্রহর গুণছিলো ইংলিশদের অলআউট হবার। স্কোরবোর্ডে জমা হয়েছে ১৬৮ রান, তাতেই নেই ৬ উইকেট। স্বিকৃত কোন ব্যাটসম্যানও নেই ক্রিজে। অথচ মাথার ওপর ৩৩০ রানের বোঝা। স্বভাবত ভারত উচ্ছসিত হবেই!
তবে সেখানে বাধ সাধলেন কারান। প্রথমে মইন আলী, আদিল রশিদ এবং শেষের দিকে মার্ক উড আর রেস টপলিকে নিয়ে টার্গেট ছোয়ার দুর্বার সাহস দেখিয়েছে এই অলরাউন্ডার। হাতে আর একটা ওভার থাকার আফসোস হতেই পারে তার। কিন্তু সেটা তো আর সম্ভব না, নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে তাই কারানকে থামতে হলো ৩২২ রানে, জয়ের থেকে মাত্র ৭ রান দূরে!
রোববার পুনেতে ভারতের অধিনায়ক হিসেবে ২০০তম ম্যাচে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামেন বিরাট কোহলির দল। দুর্দান্ত শুরুর করে ৩২৯ রান সংগ্রহ করে ভারত। জবাবে ৩২২ রানে থামে ইংলিশদের ইনিংস। ইংলিশদের সফরের শেষ ও সিরিজের শেষ একদিনের ম্যাচ জিতে ওয়ানডে সিরিজ ২-১ ব্যবধানে জিতলো ভারত। এর আগে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি সিরিজও নিজেদের করে নিয়েছিল দলটি।

ম্যাচে ইংলিশ অধিনায়ক বাটলারের আমন্ত্রণে ব্যাটে নামে রোহিত-ধাওয়ান। শুরুতে শতরানের জুটি গড়েন তারা। ধাওয়ান ৬৭ এবং রোহিত ৩৭ রানের ইনিংস খেলেন। এরপরে ভারত অধিনায়ক কোহলি এবং রাহুল দুজনেই ব্যর্থ হন। তবে পন্থ এবং হার্দিক দুর্দান্ত ইনিংস খেলে তাদের ব্যর্থতা সামাল দেন। পন্থ ৬২ বলে ৭৮ এবং হার্দিক ৪৪ বলে ৬৪ রান করেন। ক্রুনাল পান্ডিয়া ২৫ এবং শার্দুল ঠাকুর ৩০ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন।
তবে মার্ক উড ও রশিদদের বলে রান চালু রাখলে ৪৮.১ ওভারে ৩২৯ রানে শেষ হয় টিম ইন্ডিয়ার ইনিংস। ইংলিশদের হয়ে ৭ ওভারে ৩৪ রান দিয়ে তিনটি উইকেট শিকার করেন মার্ক উড। ১০ ওভারে ৮০ রানের বিনিময়ে দুই উইকেট তুলে নেন স্পিনার আদিল রশিদ। একটি করে উইকেট শিকার করেন বেন স্টোকস, স্যাম কারান, টপলি, মইন আলী ও লিভিংস্টোন।
জবাবে শুরুতেই ভুবেনশ্বর কুমারের বলে জেসন রয় ও বেয়ারস্টো ফিরে যায়। এর পরে চাপ সামলানো জুটি ভেঙে আগের ম্যাচের নায়ক বেন স্টোকসকে ৩৫ রানে ফেরান নটরাজান। পরে ডেভিড মালান ফিফটি করে ফিরলে চাপে পরে সফরকারীরা। এর আগে ৩৬ রানে সার্দুল ঠাকুরের বলে ক্যাচ হয়ে ফিরেন লিভিংস্টোন। তখন ওয়ান ম্যান শো দেখাতে নামেন স্যাম কারান। ছোট ছোট জুটি গড়ে একসময় জয়ের স্বপ্নও দেখাচ্ছিল ইংল্যান্ডকে। তবে নির্ধারিত ওভার শেষে সেঞ্চুরির থেকে মাত্র ৫ রান আর জয়ের থেকে ৭ রান দূরে থামতে হয় কারানকে।
তবে কারানের বিরোচিত ইনিংসের পুরষ্কারও মিলেছে ম্যাচ শেষে। তবে দলকে জেতাতে না পারা কারানের হয়তো ম্যাচ সেরার পুরষ্কার ততটা আনন্দ দিবে না। ভারতের মাটিতে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে ২-১ হার স্বিকার করতে হলো েইংলিশদের। সিরিজের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন ইংলিশ ক্রিকেটার জনি বেয়ারস্টো।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here