শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার প্রথম দিনে শিক্ষার্থীদের প্রাণের উচ্ছ্বাস

0
1

আনোয়ার হোসেনঃ

বেজে উঠেছে স্কুল-কলেজের ঘণ্টা। শেষ হয়েছে অপেক্ষা। নানা অজুহাতে প্রতিদিন দেরি করে আসা শিক্ষার্থীও আজ ক্লাসে এসেছে সময়মতো। আলোচনা-সমালোচনা, পরিকল্পনা শেষে আজ থেকে খুলেছে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দরজা।

প্রায় ১৮ মাস বন্ধের পর পটুয়াখালীর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ঘুরে দেখা যায় শিক্ষার্থীরা মিলিত হয়েছে প্রাণের উচ্ছ্বাসে। ধুলোপড়া খাতা-কলমে লেগেছে মলিন হাতের ছোঁয়া।আনন্দে দিশেহারা ছোট ছোট কোমলমতি শিশুরা।

৫৪৩ দিন বন্ধ থাকার পর খুলেছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ক্লাসে ক্লাসে ফিরেছে আনন্দমুখর পরিবেশ। চিরচেনা সেই দৃশ্য দেখার জন্য উন্মুখ সবাই। এর আগে সরকারের পক্ষ থেকে তিনবার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার কথা বলা হলেও চতুর্থ বারে সুনির্দিষ্ট ভাবে ঘোষণা করা হয়েছে ।

চওড়া হাসি ফুটেছে স্ট্রেশনারি দোকান গুলোতেও। দীর্ঘ আয়ের যুদ্ধের পর নতুন সাজে প্রস্তুত স্কুলের বাইরে দাঁড়িয়ে থাকা ভ্রাম্যমাণ দোকানদাররা। স্কুল ভ্যানগুলোতে উঁকি দিচ্ছে নতুন উজ্জ্বল রং।

শিক্ষকরা সন্তানতুল্য শিক্ষার্থীদের আদরমাখা শাসনের জন্যও নিয়েছেন মানসিক প্রস্তুতি। করোনা মোকাবেলা বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করার জন্য শিক্ষকরা নির্দেশনা দিচ্ছেন।সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে যেতে হবে, সাবান,হ্যান্ডস্যানিটাইজার,মাস্ক এসব বিষয়ের উপর গুরুত্ব আরোপেও আলোচনা করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here