,


শিরোনাম:
«» বালিয়াডাঙ্গীতে ৫৩ মধ্যে ৪৮ টি ভূমি-গৃহহীন পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার উপলক্ষে ঘর- প্রেস ব্রিফিংয়ে এউএনও «» ঠাকুরগাঁওয়ে ঈদুল ফিতর উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা «» আশুলিয়া থানা আওয়ামীলীগের আয়োজনে ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত «» ঠাকুরগাঁওয়ে মুজিববর্ষ ও ঈদ উপহার উপলক্ষে আরও ২৬১২ভূমিহীন পাচ্ছেন জমি ও নতুন ঘর «» আদমদীঘি গৃহ নির্মাণ কাজের অগ্রগতি নিয়ে সংবাদ সম্মেলন «» আদমদীঘিতে ব্রাকের দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত «» প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের অপেক্ষায় নওগাঁর সাপাহারে ৪৫ টি গৃহহীন পরিবার উদ্বোধন উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের প্রেস ব্রিফিং «» মাদ্রাসার এতিম শিশুদের নিয়ে সেভিয়ার ফাউন্ডেশন রাজশাহী ইউনিট এর ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত «» কে এই মহা ক্ষমতাধর শলোক মোল্লা- হরিণাকুন্ডুতে সাংবাদিক কে প্রাণনাশের হুমকি,থানায় অভিযোগ দায়েরঃ বিএমএসএস’র পক্ষে নিন্দা, প্রতিবাদ ও গ্রেফতার দাবী «» সাংবাদিক নির্যাতন ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে নওগাঁয় বিএমএসএফের মানববন্ধন

রাজনৈতিক মতাদর্শী না হওয়ায় দিন রাত ঘুরেও পাইনি বাবার মৃত্যু সনদ–নির্যাতনের স্বীকার আদিবাসী যুবক

 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার ২নং চন্দননগর ইউপির হরশৈল আরজিকাশিবৃত্তি গ্রামের এক আদিবাসী সম্প্রদায়ের মৃত বুদুল এক্কার ছেলে সুব্রত এক্কাকে বাবার মৃত্যু সনদ না দিয়ে ঐ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তাকে নির্যাতন করেছেন বলে দাবি করেছেন এই আদিবাসী সম্প্রদায়ের যুবক।

সুব্রত এক্কা বিগত/০৮/০৩/২০২১-ইং তারিখে মৃত পিতার মৃত্যু সনদের জন্য চন্দননগর ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান বদিউজ্জামান বদির নিকট গেলে কম্পিউটারের সার্ভারের সমস্যার কথা বলে তাকে মৃত্যু সনদ না দিয়ে ফেরত পাঠায়। এভাবে ২মাস ঘুরেও মেলেনি বাবার মৃত্যু সনদ।

সাম্প্রতিক বদিউজ্জামান বদির সমর্থক গোষ্ঠী নামক একটি ফেইসবুক আইডিতে একটি পোস্টে চেয়ারম্যানের দায়িত্বহীনতা অপারগতা সম্পর্কে একটি কমেন্ট করেন বাবার মৃত্যু সনদ না পাওয়ার কষ্টে আদিবাসী সম্প্রদায়ের যুবক সুব্রত এক্কা। কমেন্টি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সত্যর বেড়াজাল উন্মোচিত হওয়ায়, চেয়ারম্যানের  মনে ক্রোধের সৃষ্টি হয়। ১৫/৬/২০২১/মঙ্গলবার তাহার  কিছু ভাড়াটে গুন্ডাবাহিনী গবিন্দের ছেলে আশিষ- (২৯) বাটুর ছেলে যতিন-(৩২) যতিশের ছেলে ফুলচান( ২৭) ও আহসান হাবিব  সন্ধায় সুব্রত এক্কা কে মোটরসাইকেলে করে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে আসে চেয়ারম্যানের নিজের বাসভবনে।

পরে চেয়ারম্যান এসে সুব্রত এক্কা কে তার পায়ের জুতা ও লাটি দিয়ে বেধড়ক মারপিট শুরু করে দেয় এবং চেয়ারম্যান তাকে বলে তোরা এই আদিবাসী সাওয়াতাঁল রা পুরো চন্দননগর ইউনিয়ন টাকে সাঁওতালদের রাজ্যেই পরিনত করেছিস আমি যতদিন ক্ষমতায় থাকবো মৃত্যু সনদ কেনো কোনরকম সুযোগ সুবিধা তোরা পাবিনা বলে তাকে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বের করে দেয়া হয়।

পরে সুব্রত এক্কার পরিবারের লোকজন খবর পেয়ে সুব্রত এক্কাকে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানাযায় বেশকয়েক মাস যাবত বদিউজ্জামান বদির সমর্থক গোষ্ঠীর কিছু ইয়াং ছেলেরা ইউনিয়নের সর্বত্র মাদক সেবন থেকে শুরুকরে মাদক ব্যবসা ও এলাকার লোকজনদের বিভিন্ন ভাবে উৎপাত করে আসছে বিষয়টি নিয়ে চেয়ারম্যান কোনরকম পদক্ষেপ গ্রহণ করেনা  বরং তাদের বিরুদ্ধে কোন কথা বলতে গেলেই হামলার স্বীকার হতে হয় তায় ভয়ে কেউ মুখ খুলতে চায়না বলে জানা যায়।

বিষয়টি নিয়ে সুব্রত এক্কা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি অভিযোগ দ্বায়ের করেছেন এবং বিষয় টি তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের আর্জি জানিয়েছেন

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ